প্রফেশনাল লেভেলের ক্যামেরা নিয়ে এলো হুয়াওয়ে মেট ৩০ প্রো ফোন

হুয়াওয়ের ফ্ল্যাগশিপ মেট সিরিজ নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেয়। আজকে জার্মানির মিউনিখে এক ইভেন্টে তাদের মেট সিরিজের লেটেস্ট সংযোজন মেট ৩০ প্রো এর ঘোষণা দিলো হুয়াওয়ে। অবশ্য ফোনটির ডিজাইন ও স্পেসিফিকেশন বিভিন্ন লিক এর কল্যাণে অনুমেয়ই ছিল। তার পরেও বলতেই হচ্ছে হুয়াওয়ের সব উদ্ভাবন আর পরিশ্রম যেন ঢেলে দিয়েছে তারা ফোনটিতে।
ফোনটির সবচেয়ে বড় দিকই হচ্ছে এটার ক্যামেরা। বিভিন্ন কোম্পানি তাদের ফ্ল্যাগশিপ ফোনের ক্যামেরাকে বরাবরই প্রফেশনাল ক্যামেরার সাথে তুলনা করে আসছে। তবে এবারে হুয়াওয়ে যেন সত্যিই এক প্রফেশনাল ক্যামেরা নিয়ে এলো। বাস্তবে এখনো পরীক্ষা না করা হলেও অন্তত কাগজে কলমে এটাই পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী স্মার্টফোন ক্যামেরা কনফিগারেশন।

এতে থাকছে দুটি ৪০ মেগাপিক্সেল সেন্সর ও আরেকটি ৮ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো সেন্সর। তাদের দ্বিতীয় ৪০ মেগাপিক্সেল সেন্সরটি তাদের সুপার সেন্সিং টেকনোলজি সমৃদ্ধ যাকে তারা বলছে পৃথিবীর প্রথম সিনে লেন্স যা স্মার্টফোনে অবস্থান করছে। এর সাহায্যে নাকি প্রফেশনাল লেভেল এর ভিডিও করা যাবে।

সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হলো এর ছবি ও ভিডিও মোডের আইএসও সেন্সিটিভিটি যথাক্রমে ৪০৯৬০০ এবং ৫১২০০ যা স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ। এমনকি ডিএসএলআর কিংবা মিররলেস ক্যামেরাতেও এত সংবেদনশীলতা বিরল।

ফোনটি ৭৬৮০ ফ্রেম প্রতি সেকেন্ডে স্লো মোশন ভিডিও করতে পারে যা শুধু প্রফেশনাল ক্যামেরাগুলোতেই সম্ভব। এর সিনে ক্যামেরাটি দিয়ে ডিএসএলআর ক্যামেরা মতো ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করা ভিডিও করা যাবে যা সত্যিই অসাধারন একটি ফিচার।

আকর্ষণীয় ক্যামেরার সাথে ফোনটির ডিজাইন ও অনন্য। এতে আছে ওয়াটারফল ডিসপ্লে যা আপনারা ভিভো নেক্স ৩ তে দেখেছেন। তার মানে এতে কার্ভড ডিসপ্লের সাথে কোন ফিজিক্যাল বাটন থাকছে না। বরং এর ডিসপ্লের কার্ভড অংশটিই প্রেশার সেনসিটিভ বাটন হিসেবে কাজ করে।

এতে আপনি ইচ্ছামত সুবিধাজনক পজিশনে পাওয়ার বাটন, ভলিউম বাটন, ক্যামেরা বাটন ইত্যাদি ম্যাপ করে দিতে পারবেন। এত সুন্দর ডিজাইনের মাঝেও এতে থাকা বিশালাকার নচটি হয়তো অনেকের কাছেই বিরক্তিকর মনে হতে পারে। তবে হুয়াওয়ে বলছে এর নচটি হলো পৃথিবীর সবচেয়ে “কমপ্লিকেটেড নচ”। এতে থাকা থ্রিডি সেন্সর দিয়ে এটি আপনার হাতের জেশ্চার অনুযায়ী কাজ করতে পারবে।

তবে অনেকের কাছে হতাশার কারণ হতে পারে যে কারণটি সেটি হলো এতে কোন গুগল সার্ভিস থাকছে না। তবে এটি এন্ড্রয়েড ভিত্তিক ইএমইউআই ১০ এই চলবে। বরং এতে গুগল সার্ভিস এর বদলে হুয়াওয়ের সার্ভিস ইন্সটল করা থাকবে। অবশ্য এ ব্যাপারে তারা আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিল।

হুয়াওয়ে মেট ৩০ প্রো এর স্পেসিফিকেশনঃ

  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫৩ ইঞ্চি, ফুল এইচডি প্লাস, ফ্লেক্স ওলেড হরাইজন ডিসপ্লে, এইচডিআর ১০। 
  • চিপসেটঃ হুয়াওয়ে কিরিন ৯৯০ 
  • র‍্যামঃ ৮ জিবি 
  • স্টোরেজঃ ২৫৬ জিবি 
  • ক্যামেরাঃ ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ 
  • ৪০ মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স ৬০০ মেইন সেন্সর 
  • ৪০ মেগাপিক্সেল আল্ট্রাওয়াইড সুপার সেন্সিং সিনে লেন্স 
  • ৮ মেগাপিক্সেল টেলিফটো লেন্স (৪৫এক্স জুম) টাইম অব ফ্লাইট সেন্সর 
  • ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা 
  • অন্যান্যঃ বাটনবিহীন ডিজাইন, ৫জি সাপোর্ট, জেশ্চার সাপোর্ট, বোকেহ ভিডিও 
  • ব্যাটারিঃ ৪৫০০ মিলিএম্প, ২৭ ওয়াট ফাস্ট চার্জ 
  • ওএসঃ এন্ড্রয়েড ৯.০ পাই ভিত্তিক ইএমইউআই ১০ 
  • মূল্যঃ ১০৯৯ ইউরো (১০০০০০ টাকা) থেকে শুরু 
Related Posts